সানোয়ার রাসেলের দুটি কবিতা

কলম এক আশ্চর্য অসুখের নাম
ঐ যে অর্জুনপাতা ছুঁয়ে ছুঁয়ে
মন্দ্র হাওয়ারা হেথা নিয়ে আসে রোদ
দুপুর স্তব্ধতায়
শ্রবণ―এক তেপান্তরের মাঠে হারিয়ে যাওয়া
জামের শাখার মৃদু কম্পন
জমাজলে দাড়কিনি মাছের ভগ্নস্থবিরতা
নিসঙ্গ দোয়েলের শিস―
বিলপাড়ে অদৃশ্য হাওয়ার সঙ্গীত
এই যে আকাশটা পুড়ে যায়
মেঘদল বিহ্বল
নিজেই জানে না বুঝি
কতটুকু ভারী হলে ধারাজল
বইবে ধরায়

কলম―দৃশ্য ও দৃশ্যাতীতে সংক্রমিত
এক আশ্চর্য অসুখ
কল্ বে কল্ বে সব লিখে যেতে চায়

হাওয়া
ঠিক দুপুরের গেঁয়ো বাঁশবনের মতো
তুমি এক মস্ত নিরালা
বাতাসের শন শন শব্দের সিম্ফনি
খসখসে সমূহ পাতায়
প্রলুব্ধ ধেড়ে ইঁদুরের মতো
আমাকে টেনে বার করো
আর ছুঁড়ে দাও এমন এক বৃহৎ উদাস
যেন এক নিসঙ্গ ঘুঘু
তার আলতারাঙা পায়ের চিহ্ন এঁকে উড়ে যায়
শূন্যতার সঙ্গী হয়ে ঝরে যায় পাতা
ঝাড়ের জাফরি গলে নেমে আসে রোদের নকশা
লাল ঠনঠনে মাটির ওপর
তুমি এক এতটাই হু হু হাহাকার
তুমি এক মস্ত নিরালা
আমার অস্তিত্বজুড়ে তুমি এক দুঃখ-প্রহেলিকা
রোদেলা দুপুরে এক সীমাহীন ঝিম
বহন করছি আমি আজন্ম আদিম ফুৎকার
বুকের ভেতর পুষি আদমের আদি পদরেখা।

Facebook Comments