সকাল রয়ের দুটি কবিতা

আষাঢ়ম্য
নামহীন একটি নদী—
চোখের আঙিনায় তুলে রেখেছো একযুগ ধরে।
ছিলো একদিন অনেক গল্পকথা;
যা আজ ঝুলে আছে সচকিত কানের দুলে।

কেটে যাচ্ছে জলে কেনা রোদমেঘ দিন,
ফুরিয়ে আসছে আষাঢ়ের ঋণ।

অপেক্ষা আর অপেক্ষায় নেই!
ভেঙে-ক্ষয়ে সে রুপবান
এখনো ঠোঁট হাসে—
এখনো ছড়িয়ে পড়ে মিথ্যে করা বলা ‘ভালো আছি’ কথাটি
এখনো জ্বলে সলতেহীন প্রদীপ হয়ে বর্ষা-বসন্ত রাতে।

জাগতিক
মাঠজুড়ে কাঁচগল্পের থই-থই
জায়নামাজে থমকে থাকা আমি
চোখ বুজে যে পৃথিবী আঁকি
তাতে দুঃখ থাকে না।

স্বার্থবাজ ফুলগুলোও সুবাস ছড়ায়
পথের শিশু শিলালিপি খুঁড়ে দেখে
অর্থের ব্যঞ্জনা সমুখে।
ফুলহাতা শার্টের হাতা গুটিয়ে
নুনচোখে ঈদ নিয়ে বাড়ি ফিরি।

জন্মান্ধ বালিকা স্বর্গের রথ থেকে নেমে এসে
বাঁশিতে দেয় টান
তাতে কোনো দুঃখ থাকে না
নৈঃশব্দ্য ভেঙে মহাকাশ জেগে উঠে।

Facebook Comments