যেখানে মুক্তগদ্যের সার্থকতা ও অমরতা

ডিজাইন : মুহারেব মুহাম্মদ
মুক্তগদ্যকে কেবল গদ্য বলে আমরা যারা বাড়াবাড়ি করে থাকি সেইসব ভুল ভেঙে নতুন মাত্রায়, নতুন স্বাদে, নতুন উপলব্ধিতে—গদ্যের যে অনন্যতা তা দেখতে পাই আতিক ফারুকের ‘বুনোফুলের দিন’ বইটিতে। যেখানে লেখক শুধু গদ্যই সন্নিবেশিত করেননি বরং গদ্যের কত প্রকার হতে পারে সেটাও আবিষ্কার করে দেখিয়েছেন। যারা বলেন মুক্তগদ্যে কিছুই নেই, শুধু শব্দের পর শব্দ—তাদের জন্য রেখে দিয়েছেন জীবনের গভীর উপলব্ধি সম্বন্ধীয় কিছু অনবদ্য বাক্য।
যেমন—
*
আটকে গেছি সবুজ পাতার রেখায়—বেরুবার পথ নেই—পৃথিবী একটি সবুজ পাতা।
*
তরুণীর সুরম্য চেহারায় রক্তজবা ফুটে আছে। সেই রক্তজবার লোভে পড়ে এক ধূর্ত তরুণ তার সুরম্য চেহারায় এঁকে দেয় সবুজের মাঝে এক রক্তাক্ত বাংলাদেশ!
*
সংকীর্ণ মানসিকতা থেকে তৈরি হয় ব্যক্তিগত বিষাদ। তুমি প্রশস্ততা দিকে এগিয়ে চলো…
*
নূপুরের ঝংকারে প্লাবিত হচ্ছে পৃথিবী। নর্তকী, থেমে যাও এবারের মতে। তোমার এইসব উম্মাদনা কেড়ে নিচ্ছে আমার আহার—কেড়ে নিচ্ছে রাতের ঘুম। থাম!
*
জীবন এক অপার্থিব অপাঠ্য কবিতা।
*
এক আশ্চর্য স্লোগানে লোকান্তরিত হয়ে যাচ্ছে সময়—ভাষা প্রেমিকের মতো আমি প্লেকার্ড হাতে দাঁড়িয়ে আছি একবিংশ শতাব্দীর বীভৎস মেরুদণ্ডে—কূপমণ্ডুকের এই উশৃংখল সমাজবাদীদের মুখে বিষ্ঠা ছুড়ে ওড়ে গেছে প্রতিবাদী পাখি।
*
যাবতীয় প্রেম-ভালোবাসা একঘেয়েঁমিতে অভ্যস্ত হয়ে গেছে বলেই আজ কোন সম্পর্ক চির স্থায়ী নয়।
*
শুধু প্রেম নয়, ভালবাসা নয়; প্রথমত খুব ভালো বন্ধু হাওয়া একান্ত প্রয়োজন—পরাধীনতার বেড়াজালে বন্দী হওয়ার ইচ্ছে থাকলে তুমি এই সম্পর্কে জড়িয়ে যাও।
এমন গভীরতম কিছু বাক্য সুসংহত করেছে বইটিকে। আরও কিছু ঘোরলাগা আবেশকেন্দ্রীয় গদ্য বিমোহিত করে গেছে ক্রমাগত। অতঃপর লেখক আতিক ফারুককে শুধু মুক্তগদ্যকার বলতে পারি না। কারণ তিনি তার বাক্য গঠনে বিপুল সম্ভাবনাময় একজন কবির পরিচয় দিয়েছেন। লেখক নিজে তার স্বীকৃতি দিয়েছেন বইটিতেই, “রোদ উঠেছে আজ—বর্ষার বিমর্ষ রোদ। এযাবতকালে বহু লিখেছি গান, কবিতা, মুক্তগদ্য। তবু ফুরোয় না।”
আমরা চাই তার এসব কবিতা, মুক্তগদ্য অফুরন্ত হোক। সমৃদ্ধ হোক আমাদের গদ্যশিল্পের ভাণ্ডার। আমরা বঞ্চিত হতে চাই না এমন একজন জ্ঞানী, প্রতিভাবান গদ্যকার ও কবি’র থেকে। আরও অনেক কিছু পাওয়ার আছে তার থেকে। আমরা বিপুল আশাবাদী। আল্লাহ তার পথচলা দীর্ঘ করুন। আমিন।
.
ধরন : মুক্তগদ্য
লেখক : আতিক ফারুক
প্রকাশকাল : মার্চ ২০২১
প্রচ্ছদ : নির্ঝর নৈঃশব্দ্য
মূল্য : ৫০৳

Facebook Comments